পড়লে অবাক হবেন- রুদালি: ম’রা বাড়িতে কা’ন্নাই যাদের চাকরি!

বাড়িতে কেউ মা’রা গেল, স্বাভাবিকভাবেই পরিবারের সবাই কাঁ’দবে, বিলাপ করবে। খুবই স্বাভাবিক একটা দৃশ্য! কিন্তু, একদল কালো কাপড় পরিহিত নারী এসে যদি আপনার পরিবর্তে ম’রা কা’ন্না কেঁদে দিয়ে যায়- তাহলে কেমন হবে – ভাবুন তো! সেটাই চলে আসছে ভারতের রাজস্থান রাজ্যে, শত শত বছর ধরে! কালো পোশাক পরিহিত একঝাঁক নারী ঘুরে বেড়াত রাজস্থানময়। কোথাও কেউ মারা গেলে বা মারা যাবে এমন সম্ভাবনা থাকলে আগে থেকে ভাড়া করে রাখা হতো তাঁদের। তাঁদের প্রধান কাজ মরা

শুধু মাছ বা মাংসে নয়, ভরসা রাখুন মটরশুটিতে

শরীর ফিট রাখতে প্রোটিনের গুরুত্ব অনেক। এজন্য প্রতিদিনই স্বাস্থ্য সচেতনদের পাতে থাকে মাছ বা মাংস। তবে জানেন কি? প্রোটিনের অভাব পূরণ করতে শুধু মাছ বা মাংসে নয়, ভরসা রাখুন মটরশুটিতে। অবাক হচ্ছেন? আপনি যদি নিরামিষাশী হন অথবা প্রতিদিন মাছ বা মাংস কেনার সামর্থ্য না থাকে তবে শরীরের প্রোটিন চাহিদা মেটাতে পারেন শুধু মটরশুটি খেয়ে। কম খরচেই প্রচুর প্রোটিন পেয়ে যাবেন এক বাটি মটরশুটিতে। ২ পিস মাছ বা ৩ পিস মাংসের বদলে খান একবাটি মটরশুটি।

দীঘিকে প্রধানমন্ত্রীঃ তুমি আমা’র মায়ের রোমান্টিক পার্টটা করছো!

দীঘিকে রোববার ফোন করেই বোঝা গেল বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছেন। এপাশ থেকে ‘কেমন আছেন’ জিজ্ঞাসা করতেই হাসি হাসি কণ্ঠে দীঘির উত্তর ‘বেশ ভালো’।তবে শীতের দিনে শীতের আ’মেজ নেই বলে কিছুটা মন খা’রাপের কথা জানালেন দীঘি। বললেন, ‘শীতের পোশাক পরলে গরম লাগছে, আবার না পরলেও লাগছে শীত। কি মু’স্কিল!’ শীত নিয়ে দীঘির এই মন্তব্যের পরই কথার মোড় ঘুরে যায় প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের দিকে। শনিবার দিনটি বেশ সুন্দর কে’টেছে দীঘির। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে তার বাসভবনে গিয়েছিলেন।

পুরুষের যৌ’ন ও ধা’তু দূ’র্বলতায় আয়ুবের্দী চিকিৎসা

যেনে রাখা প্রযোজন যৌ’ন ও ধা’তু দূর্বলতায় আয়ুরবেদী চিকিৎসা: ধা’তু দূর্বলতা : অনৈচ্ছিক বী’র্যপাতের নামই হলো ধা’তু দুর্বলতা । এ ধরনের সমস্যায় সপ্নাবেশ বা ক’ম উ’দ্দীপনা ছাড়াই বারবার বী’র্যস্থলন হয়। সাধারণভাবে বলতে গেলে ইহা নিজে কোন রোগ নয় বরং অন্যান্য রোগের উপসর্গ। ধা’তু দূর্বলতা এর কারণসমূহ : যৌ’বন কালে অস্বাভাবিক উপায়ে শু’ক্র ক্ষয় হলে এই সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে, হ’স্তমৈথুন এবং অতিরিক্ত যৌ’ন মি’লন করা ইহার প্রধান কারণ। কোষ্ঠকাঠিন্য, অর্শ্বরোগ ইত্যাদির কারণেও ইহা হতে

আয়ু’র্বেদশাস্ত্রে পুরুষদের বন্ধ্যা’ত্বের চিকিত্‍‌সায়

এই সমাজে পু’রুষত্বহীনতা বা পুরুষদের বন্ধ্যা’ত্বের চিকিত্‍‌সায় আয়ুর্বেদে মধুর ব্যবহার নতুন নয়। আয়ুর্বেদশাস্ত্রে উল্লেখ রয়েছে, মধু মিশিয়ে নিয়মিত এক গ্লাস করে দুধ খেলে স্পার্ম কাউন্ট শূন্য থেকে বেড়ে ৬ কোটি পর্যন্ত হতে পারে। ভাবছেন এটা কিভাবে সম্ভব। মানবদেহে শু’ক্রাণুর প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। আপনি কি আপনার জীবনে নতুন অতিথি চান? যে আপনার ঘর আলো করে আসবে? যার হাসি-কা’ন্নায় ভরে তুলবে আপনার মন, এক সময় বাবা-মা বলেও ডাকবে সে। আর আপনার অপূর্ণ জীবনকে পরিপূর্ণ করবে। যদি সেটাই

মাএ চার দিন যেতে না যেতেই চা’ঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁ’স

রাজধানীর কলাবাগানের ডলফিন গলি এলাকায় ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কুলের এক শিক্ষার্থীকে পর অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে তার বয়ফ্রেন্ড ফারদিন ইফতেখার দিহান ও তিন সহপাঠীর বি’রুদ্ধে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর কলাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নি’হত ওই তরুণী (১৭) ও লেভেলের শিক্ষার্থী ছিলেন। তার নাম আনুশকাহ নূর আমিন। ডলফিন গলির বাসায় ফারদিন, তার বড় ভাই, গ্রামের দূর স’ম্পর্কের এক চাচাতো ভাই থাকেন। এবং তার বাবা আরেক ভাইকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি রাজশাহীতে থাকেন। তিনি অবসরপ্রাপ্ত জে’লা রেজিস্ট্রার। ফারদিনের নানা অ’সুস্থ

প্রিয় রাসূল (সা.) এর আর্দশ ও আজকের মুসলিম সমাজ

মুহাম্মদ ইজহারুল হক। তিনি একজন প্রবীণ বিশ্লেষক, গবেষক ও সুপরিচিত লেখক। ভারতের প্রসিদ্ধ পত্রিকা রোজনামার বিশ্ব পাতার তিনি একজন নিয়মিত লেখক। তার লেখার তথ্য নির্ভরতা ও গভীরতা পাঠককে মুগ্ধ করে। রবিউল আউয়াল মাস উপলক্ষে তার লেখা একটি কলামে, তিনি স্পেনের আল হামরায় সফরকালে ঘটে যাওয়া একটি ঘটনার কথা বলেন। তিনি স্পেনের মুসলিম ইতিহাস ঐতিহ্যের স্মৃতিচিহ্ন দেখতে গিয়েছিলেন। আন্দালুসিয়ার গৌরবময় অতীতের স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে আধুনিক স্পেনের বুকে আজও দাঁড়িয়ে আছে ঐতিহাসিক আলহামরা প্রাসাদ। আলহামরা আন্দালুসে মুসলিম

অতএব যার হাত ও মুখ থেকে অন্য মুসলমান নিরাপদ থাকে না সে মুসলমান বলার উপযুক্ত নয়।

হযরত আবু মুসা আশআরী রা. থেকে বর্ণিত, রাসূল (সা.) ইরশাদ করেন, প্রকৃত মুসলমান সে, যার হাত ও মুখ থেকে অন্য মুসলমান নিরাপদ থাকে। অর্থাৎ না তার মুখে কেউ কষ্ট পায় না তার হাতে। এ হাদিসে রাসূল (সা.) মুসলমানদের পরিচয় দিয়েছেন। যা মধ্যে এ গুণ পাওয়া যাবে সেই প্রকৃত মুসলমান। অতএব যার হাত ও মুখ থেকে অন্য মুসলমান নিরাপদ থাকে না সে মুসলমান বলার উপযুক্ত নয়। যে ব্যক্তি নামায পড়ে না তাকে যেমন কোনো মুফতি

জনপ্রিয় কমেডি মি.বিনকে এই চরিত্রে অভিনয় করবেন না।

মি. বিনকে চেনেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া বেশ কঠিন। ছোট থেকে বড়, এমনকি বুড়ো মানুষও তাকে চেনেন। শুধু চেনেনই না, তার রয়েছে অগণিত ভক্ত। মি. বিন খ্যাত এই জনপ্রিয় অভিনেতার নাম রোয়ান অ্যাটকিনসন। তবে অনেকেই মি.বিনকে চেনেন কিন্তু রোয়ান অ্যাটকিনসন নামটির সঙ্গে পরিচিত নয়। মূলত রোয়ান অ্যাটকিনসন বিখ্যাত তার জনপ্রিয় কমেডি শো মি. বিনে কমেডিয়ান হিসেবে তার অসামান্য কৃতিত্বের জন্য। পৃথিবীজুড়ে বিখ্যাত এই সিরিজ মি. বিন ছোট-বড় যেকোনো বয়সের সবার কাছেই পছন্দের। ৬৫