বরোদার এক ম’সজিদ হয়ে গেল কভিড হাসপাতাল! অনেক প্রশংসার ঢল

এবার গোটা ভা’রতজুড়ে চলছে করো’নার দ্বিতীয় ঢেউ। ক্রমশই বাড়ছে সংক্রমণ। দেশটিতে দৈনিক করো’না আ’ক্রান্ত আড়াই লক্ষ ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভা’রতে নতুন করে করো’নায় আ’ক্রান্ত হয়েছেন ২,৫৯,১৭০ জন। ১,৭৬১ জন গত ২৪ ঘণ্টায় করো’না;য় মা;রা গিয়েছেন। হাসপাতা’লে মিলছেনা বেড। আকাল পড়েছে অক্সিজেনের। তার মধ্যেই অ’ভিনব পদক্ষেপ নিল বরোদার এক ম’সজিদ।

চলছে রমজান মাস এর মধ্যে করো’না পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে গুজরাতের বরোদার এক ম’সজিদকে রূপান্তর করা হল কোভিড হাসপাতা’লে। মোট ৩০ টি বেড রয়েছে এখানে। ম’সজিদ কর্তপক্ষ জানিয়েছে, ‘হাসপাতা’লে অক্সিজেন নেই, বেড নেই, এই সঙ্কটজনক পরিস্থিতি দেখে আম’রা ম’সজিদটিকে কোভিড হাসপাতাল বানানোর সিধান্ত নিয়েছি। রমজান মাসে এর থেকে ভালো উদ্যোগ আর কী’ হতে পারে?’

গুজরাটের কভিড পরিস্থিতি ক্রমশই খা’রাপ হচ্ছে। হাসপাতা’লের বাইরে অ্যাম্বুল্যান্সের লাইন যেন এক চেনা ছবিতে পরিণত হয়েছে। সম্প্রতি এক মা’মলার রায়দানের সময় গুজরাটের হাই কোর্ট জানায়, একটি হাসপাতা’লের বাইরে রীতিমতো ৪০টি অ্যাম্বুল্যান্সও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গিয়েছে। যদিও রাজ্যের বিজেপি সরকারের দাবি, একে পরিস্থিতি

নিয়ন্ত্রণে হাসপাতা’লের ব্যর্থতা হিসেবে চিহ্নিত করা ঠিক নয়। কেননা বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগীদের ভর্তি নেওয়ার জন্য নির্দিষ্ট প্রোটোকল মানতে হচ্ছে। তাতেই সময় লাগছে। তাছাড়া যেহারে সংক্রমণ বাড়ছে, তাতে এর মোকাবিলা করাও চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এই মুহূর্তে ভা’রতের করো’না পরিস্থিতিতে উদ্বেগ ক্রমেই বাড়ছে। নিজেদের মতো করে মা’রণ ভাই’রাসকে রুখতে পদক্ষেপ করেছে অনেকেই। একদিকে যেমন গুজরাটের ম’সজিদের এই পদক্ষেপ চোখে পড়ছে, অন্যদিকে ছত্তিশগড়ের এক মহিলা ডেপুটি পু’লিশ সুপারিটেন্ডেন্ট’কে দেখা গিয়েছে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থাতেই ব্যস্ত সড়কে সকলকে কভিড বিধি মেনে চলার অনুরোধ জানাতে।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

ইন্টারনেটে ভাই’রাল হয়ে গিয়েছে সেই ভিডিও। তাতে দেখা গিয়েছে, ডিএসপি শিল্পা সাহু রাস্তায় দাঁড়িয়ে সকলকে আরজি জানাচ্ছেন‌ কভিড বিধি মেনে চলার জন্য। তাঁর হাতে লা’ঠি। মুখে ফেস শিল্ড। গ্রীষ্মের গনগনে রোদে দাঁড়িয়ে

মানুষকে সচেতন করার তাঁর এই প্রয়াস দেখে মুগ্ধ নেটিজেনরা। অ’তিমা’রীর সময়ে করো’না যোদ্ধারা কতটা সংগ্রাম করছেন, তার এক চ’মৎকার নিদর্শন শিল্পা সাহুর এই ভিডিও। যা দেখে অনেকেই মন্তব্য করেছেন, এইভাবে ভা’রতের সকলে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ল’ড়াই করলে করো’নাকে হা’রানো নিশ্চয়ই সম্ভব হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *