মধুমিতা সরকার অভিনয়ে টিকতে না পেরে অ’শ্লীলতার পথ বেছে নিলেন !

অভিনেত্রী মধুমিতা সরকার ইন্সটাগ্রামে সবসময় হট ছবি শেয়ার করেন। ছবিগুলিতে মধুমিতাকে কখনও দেখা যায় হট প‍্যান্ট পরে, কখনও বা গাউন পরে। বিষয়টি নিয়ে নেটিজেনদের আ’পত্তিকর মন্তব্যের শিকার হয়েছেন বহুবার এই অভিনেত্রী। এ বিষয়ে নিজের ফেসবুকে একটি ভিডিও পোষ্ট করেছেন মধুমিতা।

ভিডিওতে তিনি বলেন, ‘ছেলেরা ফুল প্যান্ট আর মেয়েরা কেন হাফ প্যান্ট পরবে?’, ‘তুমি তো বেবি হয়ে গেছো’, ‘তোমাদের স্কুলে এমন খোলা চুলে যেতে দেয়? আমাদের তো পাছায় মারতো।’, ‘অভিনয়ে টিকতে না পেরে অ’শ্লীলতার পথ বেছে নিলেন মধুমিতা’, ‘আমি তো ভেবেছি ভুল করে নটি আমেরিকায় (পর্ন সাইট) ঢুকে গিয়েছি।’

যেসব নেটিজেন এমন মন্তব্য করেছেন তাদের নাম অবশ্য প্রকাশ করেননি এই অভিনেত্রী। তবে বেশ কটাক্ষ করে ভিডিওতে মধুমিতা বলেন—সারা বছর এমন সুন্দর সুন্দর কমেন্টের বন্যায় ভরিয়ে দেয়।

ছেলেরা খালি গায়ে বা স্যান্ডো গেঞ্জি পরে ছবি দিলে কোনো অসুবিধা হয় না। কিন্তু মেয়েরা কাজের জন্য শাড়ি বা চুড়িদার ছাড়া মিনি স্কার্ট বা হাফ প্যান্ট পরে ছবি পোস্ট করলেই তারা নটি আমেরিকার আর্টিস্ট!’

নোংরা মন্তব্য করার প্রতিবাদ জানিয়ে যে ভিডিও পোস্ট করেন মধুমিতা, তাতেও অনেককে আপত্তিকর মন্তব্য করতে দেখা যায়! তাই সকলের উদ্দেশ্যে মধুমিতা বলেন, ‘আগে ঠিক করে মেয়েদের সম্মানটা দিতে শেখো।’

পৃথিবীর সব ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি বা শোবিজ অঙ্গনের তারকারাই সোশ্যাল মিডিয়ায় দারুণ সরব। কিন্তু অধিকাংশ অভিনেত্রীদের প্রতিনিয়ত এমন ট্রলের মুখে পড়তে হয়। কিছুদিন আগেও নেটিজেনদের কটাক্ষের মুখে পড়েছিলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশীদ মিথিলা, টলিউডের শ্রাবন্তী চ্যাটার্জি, নুসরাত জাহানসহ বেশ কজন।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

কিছুদিন আগে সিকিম থেকে কলকাতায় ফিরেছেন মধুমিতা সরকার। পারিবারিক বন্ধুদের সঙ্গে পাহাড়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন তিনি। অন্যদিকে পরমব্রত চ্যাটার্জি অভিনীত ‘ট্যাংরা ব্লুজ’ ওয়েব সিরিজে দেখা যাবে মধুমিতাকে। বর্তমানে ওয়েব সিরিজটির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *